Program


রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমি
মোল্লাপাড়া, রাজশাহী কোর্ট, রাজশাহী। ফোনঃ ০৭২১৮১১২৯৩

www.kncaraj.gov.bd

১। সংস্থার পরিচিতি ঃ-
বাংলাদেশের নৃতাত্বিক জনগোষ্ঠীর জীবনধারা, ভাষা, সাহিত্য, ইতিহাস বিষয়ে গবেষণা এবং সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও বিকাশের লক্ষ্যে “রাজশাহী বিভাগীয় শহরে উপজাতীয় কালচারাল একাডেমী, খাগড়াছড়ি উপজাতীয় সাংস্কৃতিক ইন্সষ্টিটিউট এবং মৌলভীবাজার মনিপুরী ললিতকলা একাডেমী স্থাপন” শীর্ষক শিরোনামে তিনটি উপজাতীয় ইনষ্টিটিউট/একাডেমী নির্মাণ প্রকল্প জুলাই, ১৯৯৫ সালে শুরু হয়ে ডিসেম্বর, ২০০৩ এ সমাপ্ত হয়। প্রকল্পটি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর নিয়ন্ত্রনে বাস্তবায়িত হয়।

7

রাজশাহী বিভাগীয় শহরে বসবাসরত ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে নির্মিত ‘রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীটি রাজশাহী শহর থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে মোল্লাপাড়া নামক স্থানে অবস্থিত। একাডেমীর চারিপাশে বেশ কয়েকটি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী/আদিবাসী পাড়া রয়েছে। তাছাড়া বিভাগীয় একাডেমী হওয়ার কারণে একাডেমীর বিভিন্ন অনুষ্ঠান, সেমিনার, মেলা ও উৎসবে রাজশাহী বিভাগের মোট ৮ (আট) টি জেলা থেকেই ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ থাকে। ‘ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান আইন’- ২০১০-এর প্রেক্ষিতে রাজশাহী বিভাগের মাননীয় বিভাগীয় কমিশনারের সভাপতিত্বে গঠিত ১০ (দশ) সদস্যের একটি নির্বাহী পরিষদের মাধ্যমে একাডেমীর সার্বিক কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।
২। সংস্থার উপর অর্পিত দায়িত্ব ও কার্যক্রম ঃ-
ক. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষা, সাহিত্য, সংগীত, নৃত্য, নাটক, বাদ্য ও চারুকলার বিষয়ে নিয়মিত প্রশিক্ষণ
কার্যক্রম পরিচালনা করা।

খ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জনগণকে জাতীয় সংস্কৃতির মূল শ্রোতধারার সহিত সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন জাতীয় দিবস ও উৎসব উদযাপন, স্থানীয় শিল্পীদের রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

গ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবনধারা, ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং সমাজ ও সংস্কৃতির উপর সেমিনার, সম্মেলন ও প্রদর্শনীর আয়োজন এবং সেই সব বিষয়ে পুস্তুক সাময়িকী প্রকাশনা এবং প্রামাণ্য চিত্রধারণ ও প্রচার করা।

ঘ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ইতিহাস, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য তথা ভাষা, সাহিত্য, সংগীত, নৃত্য, বাদ্য, কারুশিল্প, ধর্ম, আচার-অনুষ্ঠান রীতিনীতি, প্রথা, সংস্কার ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করা এবং গবেষণা কর্মসূচি পরিচালনা করা

ঙ. আন্ত জেলা সাংস্কৃতিক বিনিময় কর্মসূচী গ্রহণ করা।

চ. দেশে বিদেশে আঞ্চলিক সাংস্কৃতিক কার্যক্রম তুলে ধরা।

ছ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ঐতিহ্যবাহী উৎসব অনুষ্ঠান ও প্রতিযোগীতার আয়োজন করা।

জ. সাংস্কৃতিক ও নাট্য সংগঠনসমুহকে আর্থিক অনুদান এবং আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ও অসহায় শিল্পীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান ।করা।
ঝ. কৃতি ও বরেণ্য শিল্পীদের সম্মানি ও সম্মাননা প্রদান করা।

ঞ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জনগণের লুপ্তপ্রায় সাংস্কৃতিক উপাদান সংগ্রহ করে যাদুঘর স্থাপন করা।
ট. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী বিষয়ক গবেষণামূলক গ্রন্থ প্রভৃতি নিয়ে লেখা পুস্তুক/গল্পসংগ্রহ করে একটি মূল্যবান লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে গবেষকদের সহায়তা প্রদান করা।

৩। প্রশাসনিক কাঠামো ও জনবল ঃ-
ক) জনবলঃ
শ্রেণী অনুমোদিত পদসংখ্যা কর্মরত পদসংখ্যা মন্তব্য
১ম শ্রেণী ২টি ২টি উপপরিচালক পদে প্রেষনে ১জন নিয়োজিত রয়েছে।
২য় শ্রেণী ৫ টি ৪টি প্রশিক্ষক (নৃত্য) ১টি পদ শূন্য রয়েছে।
৩য় শ্রেণী ৩ টি ২টি কম্পিউটার অপারেটর ১টি পদ শূন্য রয়েছে।
৪র্থ শ্রেণী ২টি ২টি
মোট= ১২টি ১০টি

খ) অর্গনোগ্রামঃ

৪। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের উল্লেখযোগ্য কার্যক্রম ঃ-
ক. প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ঃ রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীতে নিয়মিতভাবে বিভিন্ন বিষয় যেমন সাধারণ সংগীত, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সংগীত, নৃত্য, বাদ্যযন্ত্র ও নাটক এর উপর প্রশিক্ষন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। সপ্তাহে ৩ দিন প্রশিক্ষন ক্লাস ত্রবং বাকি ২ দিন মহড়া ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়।
খ. জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদ্যাপনঃ অমর ২১ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, মহান স্বাধীনতা দিবস ও মহান বিজয় দিবসসহ জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক দিবসগুলো অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে উদ্যাপন করা হয়। প্রতিটি দিবসের কর্মসূচীতে প্রতিযোগিতা, আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণী এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
গ. লাইবেরী স্থাপনঃ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ঐতিহ্যবাহী গুরুত্বপূর্ণ নানাবিধ বিষয়ভিত্তিক বইপত্রের সমন্বয়ে ১টি লাইবেরী স্থাপন করা হয়েছে। বিগত বছর গুলিতে নতুন নতুন বই ক্রয়ের মাধ্যমে লাইব্রেরী সমৃদ্ধ হয়েছে।
ঘ. জন্ম-জয়ন্তী উদ্যাপন ঃ জাতীয় শিশু দিবস, রবীন্দ্র জন্ম-জয়ন্তী এবং নজরুল জন্ম-জয়ন্তী অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে উদ্যাপন করা হয়।
ঙ. অডিও-সিডি/এলবাম তৈরী ঃ ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ভাষায় ও বাংলা ভাষায় দেশাত্বকবোধক গানের সন্ময়ে ২ টি অডিও এলবাম প্রকাশ করা হয়েছে।
চ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী বিভিন্ন দিবস ও উৎসব উদ্যাপন ঃ- উত্তরাঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বাহা, সহরায়, কারাম, জিতিয়া প্রভৃতি উৎসব এবং সিঁধু-কানু দিবসসহ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীরসামাজিক ও ধর্মীয় উৎসবসমুহ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদ্যাপন করা হয়।
ছ. মতবিনিময় সভা ঃ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ ও অবিভাবকদের সাথে প্রতি ৩ মাস অন্তর মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত মতবিনিময় সভায় একাডেমীর প্রশিক্ষণ কার্যক্রম, ছাত্র-ছাত্রী বৃদ্ধি ও সমসাময়িক নানা বিষয়ে আলোচনা করে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়।
জ. সেমিনার ঃ রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীর আয়োজনে প্রতি বছরেই উত্তরাঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষা ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে বিষয়ভিত্তিক সেমিনারের আয়োজন করা হয় যেখানে বিভাগের ৮টি জেলা থেকেই প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন।
ঝ.মিউজিক ভিডিও: ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে ৩টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বিভিন্ন গানের উপর ১ টি মিউজিক ভিডিও
নির্মাণ করা হয়েছে।
ঞ.কর্মশালা আয়োজন: রাজশাহী অঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সমৃদ্ধ লোক সংস্কৃতির মধ্যে পূজা, প্রকৃতি, প্রেমকেন্দ্রিক, উৎসবকেন্দ্রিক, ব্রতকেন্দ্রিক, ঘটনাকেন্দ্রিক প্রভৃতি বহুধারার সঙ্গীত ও নৃত্যের কোরিওগ্রাফার এবং বাদ্যযন্ত্রীদের সমন্বয়ে পক্ষকালব্যাপী “প্রশিক্ষণ কর্মশালা” করা হয়েছে এবং তাদের প্রত্যেককে সাটিফিকেট প্রদান করা হয়েছে।
ট.ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর হস্তশিল্প মেলা ও সাংস্কৃতিক উৎসব : রাজশাহী অঞ্চলসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নান্দনিক সংস্কৃতিকে সমন্বয় করে একমঞ্চে তুলে ধরা এবং তাঁদের ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্পের প্রচার ও বাজারজাতকরণে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে প্রতিটি অর্থ বছরে ৫ অথবা ৩ দিনব্যাপী “ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর হস্তশিল্প মেলা ও সাংস্কৃতিক উৎসব” এর আয়োজন করা হয়।
ঠ.স্যুভেনির সপ ঃ ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে স্যুভেনির সপ এর জন্য প্রয়োজনীয় বইপত্র, সাময়িকী ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নিজস্ব হস্তশিল্প, শো-পিস, পোশাক, ফটোএলবাম, ছবি, পোষ্টার, প্রভৃতি প্রদর্শনী ও বিক্রয়ের জন্য সংগ্রহ করা হয়েছে।

ড. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ঐতিহ্য সংগ্রহশালা স্থাপন ঃ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ঐতিহ্যবাহী পোশাক সামগ্রী, ব্যবহার্য গৃহস্থালী সামগ্রী, বিভিন্ন ধরনের বাদ্যযন্ত্র, ব্যবহার্য বিভিন্ন ধরনের অলংকারাদি, শিকারের সাজসরজ্ঞাম এবং ব্যবহার্য বিভিন্ন ধরনের আসবাবপত্রের সমন্বয়ে যাদুঘর স্থাপন করা হয়েছে। প্রতি অর্থবছরে নতুন নতুন সংগ্রহের মাধ্যমে সংগ্রহশালাটি সমৃদ্ধ করা হয়।

৫। ভবিষ্যত পরিকল্পনা ঃ-

ক. প্রশিক্ষণ ভবন কাম ডরমেটরী নির্মানঃ একাডেমীতে ছাত্র/ছাত্রীদের প্রশিক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় কক্ষ না থাকায় সুষ্ঠুভাবে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কক্ষ নির্মাণ করা অত্যন্ত প্রয়োজন। অনেক দুরদুরান্ত থেকে ছাত্র/ছাত্রীরা প্রশিক্ষণ নিতে একাডেমীতে এসে থাকেন। আবাসিক ব্যবস্থা থাকলে দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করে প্রত্যন্ত অঞ্চলের ও বিভিন্ন জেলার ছেলে-মেয়েদেরকেও প্রশিক্ষণ প্রদান সম্ভবপর হবে।

খ. একাডেমীর বিদ্যমান অডিটেরিয়ামের সংস্কার ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা সংযোজনঃ একাডেমীর বিদ্যমান অডিটেরিয়ামের সংস্কার ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা না থাকায় গরমের সময় অনুষ্ঠান করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। প্রচুর দর্শক সমাগম হওয়ায় মাননীয় অতিথিবৃন্দ, শিল্পীবৃন্দসহ সকলকেই নিদারুন কষ্ট করে অনুষ্ঠান উপভোগ করতে হয়। বিধায়, একাডেমীর অডিটেরিয়ামে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা সংযোজন করা অতীব প্রয়োজন এবং একাডেমীর অডিটোরিয়ামের বিভিন্ন স্থানে দেওয়াল ড্যামেজ হয়ে পড়ায় তা মেরামত করা প্রয়োজন।

গ. একাডেমীর জন্য ১টি মাইক্রোবাস ক্রয়ঃ একাডেমীতে ১টি যানবাহনও না থাকায় একাডেমীর সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনায় প্রতিনিয়ত অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। তাই জরুরী ভিত্তিতে একাডেমীর জন্য একটি মাইক্রোবাস ক্রয় করা প্রয়োজন।

ঘ. আঞ্চলিক পর্যায়ে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মানঃ রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীটি বিভাগীয় একাডেমী হওয়ায় বিভাগের অন্যান্য জেলার এবং ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী অধ্যুষিত এলাকায় প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মান করা প্রয়োজন যাতে একাডেমীর প্রশিক্ষকবৃন্দ আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে গিয়ে অধিকতর ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ছেলে-মেয়েদের প্রশিক্ষণ প্রদান করতে পারে।

ঙ. জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সাংস্কৃতিক উৎসব ও মেলা আয়োজনঃ উত্তরাঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নান্দনিক সাংস্কৃতিকে সর্বসাধারণের কাছে তুলে ধরতে এবং তাদের হস্তশিল্পের প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে বিভিন্ন জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সাংস্কৃতিক উৎসব ও মেলা আয়োজন করা প্রয়োজন।

চ. ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী শিল্পীদের প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচী বাস্তবায়নঃ প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে বিভিন্ন গ্রামে লুকিয়ে থাকা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর প্রতিভাবান শিল্পীদের খুজে বের করে প্রতিভা বিকাশের লক্ষ্যে এ ধরনের কর্মসূচী গ্রহণ করা প্রয়োজন।
৬। উপসংহার ঃ-

বাংলাদেশে ঋতু বৈচিত্রের মতই বৈচিত্রময় এদেশের মানুষ, তাদের সংস্কৃতি। দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ বাঙ্গালী, কিন্তুু তাদের পাশাপাশি ক্ষুদ্র নৃতাত্বিক জাতি রয়েছে অনেকগুলো।, নৃত্বাত্তিক জাতিসত্তার সংখ্যা প্রায় ৫০ টি। এর মধ্যে রাজশাহী অঞ্চলে ২১টি ক্ষুদ্র নৃতাত্বিক জাতির বসবাস রয়েছে। এসব জাতির মানুষ যুগ যুগ ধরে মূলধারার মানুষের সাথে পাশাপাশি বাস করছে এদেশে । তাদের বর্ণময়, বর্নাঢ্য সংস্কৃতি সমৃদ্ধ করেছে এদেশের সংস্কৃতিকে। বাংলা ভাষা এবং সংস্কৃতির বিকাশে এই জাতিসত্তার সংস্কৃতির অবদান রয়েছে। সুতরাং আমরা মনে করি, সরকারীভাবে প্রতিষ্ঠিত এই একাডেমীর সামনে সবচেয়ে বড় চ্যলেঞ্জ হলো ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করা, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ করা। বিশেষত: বর্তমানে প্রায় বিলুপ্ত হতে বসেছে যেসব সাংস্কৃতিক উপাদান্, সেগুলোকে চর্চা ও সংরক্ষণ করা। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মানুষের সাথে মূলধারার মানুষের যোগাযোগের ক্ষেত্র নির্মাণ করা, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সংস্কৃতি সুরক্ষায় সার্বিক সহযোগিতা ও উৎসাহ প্রদান এবং বিষয়ভিত্তিক নানাবিধ গবেষনা, প্রকাশনা, প্রদর্শনী ও প্রচারের মাধ্যমে সাংস্কৃতিক উন্নয়ন ও প্রসারে ভূমিকা পালন করা।

১৫ আগষ্ট ২০১৫ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন প্রধান অতিথি রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার জনাব হেলালুদ্দিন আহমদ।

২১ ফেব্রয়ারী ২০১৬ মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র জনাব নিযাম উল আযীম।

২৯ অক্টোবর ২০১৫ রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী আয়োজিত ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ঐতিহ্যবাহী কারাম উৎসব উদযাপন উপলক্ষে দলীয় কারাম নৃত্য প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র জনাব এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী এর অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার জনাব মুনির হোসেন, রাজশাহী কোর্ট মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সহ অতিথি বৃন্দ।

৩০ জুন ২০১৬ ঐতিহাসিক সান্তাল বিদ্রোহ সিধু-কানু দিবস উপলক্ষে রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী কর্তৃক গোদাগাড়ী রাজশাহী তে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন মাননীয় সাংসদ জনাব ওমর ফারুক চৌধুরী।

৩০ জুন ২০১৬ ঐতিহাসিক সান্তাল বিদ্রোহ সিধু-কানু দিবস উপলক্ষে রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী কর্তৃক গোদাগাড়ী রাজশাহীতে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপস্থিত প্রধান অতিথি মাননীয় সাংসদ জনাব ওমর ফারুক চেšধুরী, অনুষ্ঠানের সভাপতি একাডেমীর উপপরিচালক ড. সিতারা বেগম (উপসচিব), গোদাগাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান, ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী কর্তৃক আয়োজিত ‘ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষা ও সংস্কৃতি সংরক্ষণে প্রতিবন্ধকতা ও করণিয়” শীর্ষক সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুর রহমান সিদ্দিকী, আলোচক হিসেবে উপস্থিত প্রফেসর যোগেন্দ্রনাথ সরকার, প্রফেসর আননচিয়েতা মারান্ডী, সভাপতিত্ব করেন একাডেমীর উপ-পরিচালক ড. সিতারা বেগম (উপ সচিব)
১৫ আগষ্ট ২০১৫ রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমী এর যাদুঘর পরিদর্শন করছেন রাজশাহী এর মাননীয় বিভাগীয় কমিশনার জনাব হেলালুদ্দিন আহমদ।